শুধু খিচুড়িপট্টি নয়, গত এক বছরে জাদুর শহর ঢাকার বস্তিতে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে ১০৯ বার। ফায়ার সার্ভিসের দেওয়া তথ্যমতে, বছরটিতে বস্তিতে লাগা আগুনে ক্ষতি হয়েছে এক কোটি ১৬ লাখ ২৩ হাজার ৭৯৮ টাকা। উদ্ধার হয়েছে ১৬ কোটি ৫৬ লাখ ১৪ হাজার ৩৫৬ টাকার সম্পদ।


বস্তির বাসিন্দাদের অভিযোগের আঙুল স্থানীয় কাউন্সিলর সলিমুল্লাহর দিকে। তারা বলছেন, প্রায়ই তিনি বস্তি ছেড়ে চলে যেতে বলতেন। এর আগেও একবার বুলডোজার দিয়ে বস্তি গুঁড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। এমনকি বস্তির জমি বেচা-কেনার ঘটনাও ঘটেছেসর্বশেষ রাজধানীর মোহাম্মদপুরের শেখেরটেক ১২ নম্বর রোডের বস্তিতে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে।

গতকাল সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাতের আগুনের ওই ঘটনার আগের দিন রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর মানিকনগর কুমিল্লাপট্টি বস্তিতে আগুন লাগে। এ দুই ঘটনায় প্রাণহানি না হলেও সম্পদের ব্যাপক ক্ষতি হয় বলে ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়।দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন একমুহূর্তেই শেষ, আগুনের পর দাঁড়িয়ে থাকে শুধু কংক্রিটের খুঁটিকিছুদিন পরপরই রাজধানীর বস্তিতে কেন আগুন লাগে? এমন প্রশ্ন বিভিন্ন মহলে। বিশেষ করে গত বছরের নভেম্বরে এক সপ্তাহের ব্যবধানে পৃথক তিন বস্তিতে আগুন লাগায় সন্দেহের তীর আরও জোরালো হয়।বস্তি উচ্ছেদ করা কিংবা আগুনের ঘটনায় আমি কেন ইন্ধন দিতে যাব? মানুষের পাশে থাকাই আমার কর্তব্যের মধ্যে পড়ে কাউন্সিলর সলিমুল্লাহর, মোহাম্মদপুর, ঢাকা

গত ২৩ নভেম্বর রাতে সাততলা বস্তিতে আগুন লাগার ১৬ ঘণ্টার ব্যবধানে আগুন লাগে মোহাম্মদপুরের জহুরি মহল্লায়। সেখানকার আগুন নিভতে না নিভতেই ওইদিন রাত আড়াইটার দিকে আগুন লাগে মিরপুরের বাউনিয়াবাদ এলাকার বস্তিতে।

পুড়ে যায় শতাধিক ঘরবাড়ি ও দোকানপাট। বস্তিবাসীদের অনেকেই মনে করেন, পরিকল্পিতভাবেই লাগানো হয় আগুন।মোহাম্মদপুরের জহুরি মহল্লার আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হন সেখানকার বাসিন্দা আবদুল খালেক। ঢাকা পোস্টকে তিনি বলেন, ১৯৯১ সালে সরকারি জমিতে বস্তিটি গড়ে ওঠে। এরপর অনেকবার উচ্ছেদ করে সরকারি জমি উদ্ধার বা দখলের চেষ্টা হয়েছে। আদালতের স্থগিতাদেশ থাকায়, পুনর্বাসন ছাড়া জমি উদ্ধারের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়েছে সরকার।বস্তির বাসিন্দাদের অভিযোগের আঙুল স্থানীয় কাউন্সিলর সলিমুল্লাহর দিকে। তারা বলছেন, প্রায়ই তিনি লোকমারফত বস্তি ছেড়ে চলে যেতে বলতেন।


" />

রবিবার, ০১ আগষ্ট ২০২১ , ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮

প্রকাশ কাল :২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১ , ১০:৫৫ PM

বস্তি উদ্ধারের অস্ত্র কি তাহলে আগুন ?

single image

রাজধানীর ঘনবসতিপূর্ণ এলাকাগুলোর মধ্যে একটি কালশীর তালতলা খিচুড়িপট্টি বস্তি।

গত বছরের ২১ ডিসেম্বর দুপুরে আগুনে পুড়ে যায় বস্তিটির বেশ কয়েকটি ঘর। প্রায় দেড় ঘণ্টার চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস। যখন আগুন লাগে, তখন রিকশাচালক স্বামী শরিফুলসহ বাইরে ছিলেন বস্তির বাসিন্দা গার্মেন্টকর্মী মরিয়ম।

খবর পেয়ে ফিরে আসলেও ততক্ষণে সবকিছু পুড়ে ছাই। ওই আগুনে এমন হাজারও মরিয়ম-শরিফ দম্পতি হারিয়েছেন তাদের শেষ আশ্রয়টুকু।শুধু খিচুড়িপট্টি নয়, গত এক বছরে জাদুর শহর ঢাকার বস্তিতে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে ১০৯ বার। ফায়ার সার্ভিসের দেওয়া তথ্যমতে, বছরটিতে বস্তিতে লাগা আগুনে ক্ষতি হয়েছে এক কোটি ১৬ লাখ ২৩ হাজার ৭৯৮ টাকা। উদ্ধার হয়েছে ১৬ কোটি ৫৬ লাখ ১৪ হাজার ৩৫৬ টাকার সম্পদ।


বস্তির বাসিন্দাদের অভিযোগের আঙুল স্থানীয় কাউন্সিলর সলিমুল্লাহর দিকে। তারা বলছেন, প্রায়ই তিনি বস্তি ছেড়ে চলে যেতে বলতেন। এর আগেও একবার বুলডোজার দিয়ে বস্তি গুঁড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। এমনকি বস্তির জমি বেচা-কেনার ঘটনাও ঘটেছেসর্বশেষ রাজধানীর মোহাম্মদপুরের শেখেরটেক ১২ নম্বর রোডের বস্তিতে আগুন লাগার ঘটনা ঘটে।

গতকাল সোমবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাতের আগুনের ওই ঘটনার আগের দিন রোববার (২১ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর মানিকনগর কুমিল্লাপট্টি বস্তিতে আগুন লাগে। এ দুই ঘটনায় প্রাণহানি না হলেও সম্পদের ব্যাপক ক্ষতি হয় বলে ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা যায়।দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন একমুহূর্তেই শেষ, আগুনের পর দাঁড়িয়ে থাকে শুধু কংক্রিটের খুঁটিকিছুদিন পরপরই রাজধানীর বস্তিতে কেন আগুন লাগে? এমন প্রশ্ন বিভিন্ন মহলে। বিশেষ করে গত বছরের নভেম্বরে এক সপ্তাহের ব্যবধানে পৃথক তিন বস্তিতে আগুন লাগায় সন্দেহের তীর আরও জোরালো হয়।বস্তি উচ্ছেদ করা কিংবা আগুনের ঘটনায় আমি কেন ইন্ধন দিতে যাব? মানুষের পাশে থাকাই আমার কর্তব্যের মধ্যে পড়ে কাউন্সিলর সলিমুল্লাহর, মোহাম্মদপুর, ঢাকা

গত ২৩ নভেম্বর রাতে সাততলা বস্তিতে আগুন লাগার ১৬ ঘণ্টার ব্যবধানে আগুন লাগে মোহাম্মদপুরের জহুরি মহল্লায়। সেখানকার আগুন নিভতে না নিভতেই ওইদিন রাত আড়াইটার দিকে আগুন লাগে মিরপুরের বাউনিয়াবাদ এলাকার বস্তিতে।

পুড়ে যায় শতাধিক ঘরবাড়ি ও দোকানপাট। বস্তিবাসীদের অনেকেই মনে করেন, পরিকল্পিতভাবেই লাগানো হয় আগুন।মোহাম্মদপুরের জহুরি মহল্লার আগুনে ক্ষতিগ্রস্ত হন সেখানকার বাসিন্দা আবদুল খালেক। ঢাকা পোস্টকে তিনি বলেন, ১৯৯১ সালে সরকারি জমিতে বস্তিটি গড়ে ওঠে। এরপর অনেকবার উচ্ছেদ করে সরকারি জমি উদ্ধার বা দখলের চেষ্টা হয়েছে। আদালতের স্থগিতাদেশ থাকায়, পুনর্বাসন ছাড়া জমি উদ্ধারের চেষ্টায় ব্যর্থ হয়েছে সরকার।বস্তির বাসিন্দাদের অভিযোগের আঙুল স্থানীয় কাউন্সিলর সলিমুল্লাহর দিকে। তারা বলছেন, প্রায়ই তিনি লোকমারফত বস্তি ছেড়ে চলে যেতে বলতেন।


এর আগেও একবার বুলডোজার দিয়ে বস্তি গুঁড়িয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেন। এমনকি বস্তির জমি বেচা-কেনার ঘটনাও ঘটেছে।গত এক বছরে জাদুর শহর ঢাকার বস্তিতে আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছে ১০৯ বার। ফায়ার সার্ভিসের দেওয়া তথ্যমতে, বছরটিতে বস্তিতে লাগা আগুনে ক্ষতি হয়েছে এক কোটি ১৬ লাখ ২৩ হাজার ৭৯৮ টাকা। উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে ১৬ কোটি ৫৬ লাখ ১৪ হাজার ৩৫৬ টাকার সম্পদ

অবশ্য এ ধরনের অভিযোগ আমলে নেননি সলিমুল্লাহ। তিনি বলেন, বস্তি উচ্ছেদ করা কিংবা আগুনের ঘটনায় আমি কেন ইন্ধন দিতে যাব? মানুষের পাশে থাকাই আমার কর্তব্যের মধ্যে পড়ে।স্বপ্ন বাঁচাতে নিরলস চেষ্টা, ফায়ার ফাইটারদের সঙ্গে হাতে হাত মিলিয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টাগত বছর অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে মহাখালীর সাততলা বস্তিতে।

বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে মনে করেন বাসিন্দারা। জায়গাটির মালিক স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। ২০১০ সাল থেকে এ জমিতে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় একটি কমপ্লেক্স গড়ার চেষ্টা করলেও উচ্ছেদের চেষ্টা করেনি।বস্তিকেন্দ্রিক পলিটিক্যাল ইকোনমি আছে। আগের বাস্তবতা এখন আর নেই। এখন বস্তিতে ভাড়া দিয়ে থাকতে হয়। বস্তিতে আগুনের ক্ষেত্রে জমির দখল, ওনারশিপ (মালিকানা) নিয়ে দ্বন্দ্ব কাজ করে। সঙ্গে ভাগ-বাটোয়ারার বিষয় তো আছেপরিকল্পনাবিদ ড. আদিল মোহাম্মদ খান, সাধারণ সম্পাদক, বিআইপি

ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তর সূত্র জানায়, ২০১২, ২০১৫ ও ২০১৬ সালের ডিসেম্বরেও মহাখালীর সাততলা বস্তিতে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। প্রতিবারই বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়। অবৈধ বৈদ্যুতিক সংযোগ এবং দুর্বল তারের (ক্যাবল) কারণেই এমন ঘটনা ঘটছে।ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তরের প্রতিবেদন অনুযায়ী,

২০২০ সালে সারাদেশে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে ২১ হাজার ৭৩টি। ছোট আগুন হওয়ায় ফায়ার সার্ভিসকে কাজ করতে হয়নি ৬১৭৩টি অগ্নিকাণ্ডে। তবে সবমিলিয়ে আগুনে ক্ষতির পরিমাণ ২৪৬ কোটি ৬৫ লাখ, ৯৫ হাজার ৪৪ টাকা। ফায়ার সার্ভিসের চেষ্টায় ও আগুন নির্বাপণের কারণে উদ্ধার করা সম্ভব হয়েছে ১৪২৬ কোটি ১৮ লাখ ৪০ হাজার ৯৩৯ টাকার সম্পদ।

এই বিভাগের আরো খবর ::

নামাজের সময়সূচী

তারিখ ০১ আগষ্ট ২০২১

  • ফজর

    ৪ঃ২৭

  • যোহর

    ০০ঃ০১

  • আছর

    ৪ঃ২৭

  • মাগরিব

    ০৬ : ১৪

  • এশা

    ৭ঃ৩০

  • সূর্যোদয় : ৫ঃ৪৩
  • সূর্যাস্ত : ০৬ : ০০
Image
Ads